ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা  বুধবার ৮ এপ্রিল ২০২০ ২৪ চৈত্র ১৪২৬
ই-পেপার  বুধবার ৮ এপ্রিল ২০২০

দেশটাকে যদি সম্পূর্ণ স্বাধীন দেখে যেতে পারতাম
সুজেয় শ্যাম
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ, ২০২০, ১১:০৪ পিএম আপডেট: ২৬.০৩.২০২০ ১২:০৬ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 13

আমরা যে আশা নিয়ে, ভরসা নিয়ে স্বাধীনতার গান করেছি, যারা যুদ্ধ করে জীবন দিয়ে গেছে, তারা কিন্তু এই দেশটা চায়নি। সে সময়ের সঙ্গে বর্তমানকে মেলাতে পারি না। আমার দুঃখ লাগে। বঙ্গবন্ধু সবার। তিনি স্বাধীনতার ডাক দিয়েছেন বলেই আজ আমরা স্বাধীন বাংলাদেশে রাজনীতি করছি, ব্যবসা করছি, সংস্কৃতি চর্চা করছি। অথচ তার জন্মশতবার্ষিকীতেও স্বাধীনতা নিয়ে মনোমালিন্য। যারা জীবন দিল তাদের সম্মান করতে পারছি না, তারা তো দলমতের ঊর্ধ্বে। স্বাধীনতা সংগ্রামের ৯টি মাস সবাই মিলেমিশে ছিলাম। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর সব তছনছ হয়ে গেল। কিছু মুক্তিযোদ্ধা বিপথে গেল। বাংলাদেশ বেতার হয়ে গেল রেডিও বাংলাদেশ।
এই সময়ে আমাদের উচিত ঝগড়া-বিবাদ বাদ দিয়ে সবাই একসঙ্গে কাজ করা। এখন মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে ভাগ হয়ে গেছে। আমরা আমাদের বাবার কথা অনুযায়ী চলতে পারছি না। বোনের কথা শুনছি না। শহীদ মিনার আমাদের সবার। ভাষার জন্য ভাষা সৈনিকরা জীবন দিয়েছে। তারা তো নির্দিষ্ট কোনো দলের ছিল না। ৩০ লাখ মানুষ শহীদ হয়েছে স্বাধীন বাংলাদেশের জন্য। তারা আমাদের সবার। আমরা কী পারি না সবাই মিলে তাদের সম্মান জানাতে? মৃত্যুর আগে দেশটাকে যদি সম্পূর্ণ স্বাধীন দেখে যেতে পারতাম তবে কষ্ট লাঘব হতো।
যুদ্ধদিনের স্মৃতি : বাঙালিকে সাহস জুগিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু, তাঁর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের মাধ্যমে। এর কিছুদিন বাদে আমি সিলেট গিয়ে একটি অনুষ্ঠান করি। ২৫ মার্চ কালরাতে আমরা সিলেট ছিলাম। কারফিউ শেষে কয়েকটি পরিবারসহ আমরা গ্রামের উদ্দেশে রওনা দেই। ভারত সীমান্ত ছিল আমাদের লক্ষ্য। সিলেটের ঢাকা দক্ষিণ গ্রামের দিকে গিয়ে একটি জমিদার বাড়িতে আশ্রয় গ্রহণ করি। এক সপ্তাহ ধরে একেকটি পরিবার নিয়ে ভারতের সীমান্তে দিয়ে আসতাম। বাস ড্রাইভার কখনই আমাদের ভাড়া নেয়নি। সবশেষে আমার পরিবার নিয়ে জকিগঞ্জ সীমান্ত দিয়ে ভারত পৌঁছাই। ততক্ষণে হানাদাররা আমাদের কথা জেনে গেছে। আমরা বের হওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর জমিদার বাড়িটি আগুনে পুড়িয়ে দেয় তারা। ৮ জুন পরিবারকে নিরাপদে রেখে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রে যোগ দেই। এই সময়টাতে মানুষের আন্তরিক সহযোগিতা পেয়েছি। বঙ্গবন্ধু যে বাংলাদেশ চেয়েছিলেন সে বাংলাদেশের রূপ আমি দেখেছি যুদ্ধের ৯ মাসে।
লেখক : স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক








সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]