ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১০ আশ্বিন ১৪২৭
ই-পেপার শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

এবার করোনার বিরুদ্ধে টাইগারদের লড়াই
ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশ: বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ, ২০২০, ১১:৪৬ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 16

করোনাভাইরাস বিশ^ জুড়ে রীতিমতো মহামারী রূপ নিয়েছে। বাংলাদেশেও বাড়ছে আক্রান্ত আর মৃতের সংখ্যা। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে এবার একাট্টা হয়েছেন টাইগার ক্রিকেটাররা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সচেতনতামূলক প্রচারণা নিয়মিতই করছেন তারা। সেটুকুতেই থেমে থাকছে না করোনার বিরুদ্ধে তাদের লড়াই। ২৭ ক্রিকেটার মিলে উদ্যোগ নিয়েছেন তহবিল গঠন করে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার। তহবিল গঠনে চলতি মাসে নিজেদের বেতনের অর্ধেকটা দিয়ে দিচ্ছেন তারা।
জ্যামিতিক হারে বেড়ে চলেছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেমেছে গোটা বিশ^। সেই লড়াইয়ে শামিল হচ্ছেন ক্রীড়াঙ্গনের বড় বড় তারকারাও। করোনাকে হারাতেই হবে, এমন প্রতিজ্ঞা নিয়ে তারা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন। বাংলাদেশের ক্রিকেটাররাও বসে নেই। তহবিল গঠনের উদ্যোগ নিয়েছেন। বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা ১৭ ক্রিকেটার এবং চুক্তির বাইরে থেকে সম্প্রতি জাতীয় দলে খেলা আরও ১০ ক্রিকেটার তাদের এক মাসের বেতনের অর্ধেক দেবেন এই তহবিলে।
কেন্দ্রীয় চুক্তির বাইরে থেকে যেসব ক্রিকেটার জাতীয় দলে খেলেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তাদের প্রাপ্য গ্রেড ধরে ওই মাসের বেতন দিয়ে দেয়। সম্প্রতি জিম্বাবুয়ে সিরিজে চুক্তির বাইরে থাকা যেসব ক্রিকেটার খেলেছেন, তারাও মাসিক বেতন পাবেন। যেমন মাশরাফি বিন মর্তুজা বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে নেই। তবে চলতি মাসে তিনি যখন জাতীয় দলের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন, নিজের গ্রেড অনুযায়ী বেতন পাবেন তিনি। সব মিলে ২৭ ক্রিকেটার বেতন পেতে যাচ্ছেন। সেই বেতনের অর্ধেকটা যাবে তহবিলে। প্রাথমিক হিসেবে সব মিলিয়ে ৩১ লাখ টাকার মতো আসবে বলে ধারণা করছেন ক্রিকেটাররা। কর কেটে রাখার পর থাকবে ২৫ লাখ টাকার বেশি। এই মুহূর্তে সবচেয়ে বেশি বেতন পান টাইগারদের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। এই বাঁহাতি আবার তহবিল গঠনের মূল উদ্যোক্তাদের একজন। কীভাবে এই তহবিল গঠন করা হচ্ছে, তার বিস্তারিত নিজের ফেসবুকে দেওয়া পোস্টে জানিয়েছেন তামিম।
তামিম লিখেছেন, ‘করোনাভাইরাসের ছোবলে গোটা বিশ^ই আজ বিপর্যস্ত। বাংলাদেশেও প্রকোপ বেড়ে চলেছে। আমরা ক্রিকেটাররাও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নানাভাবে চেষ্টা করছি সবাইকে সতর্ক ও সচেতন করার। তবে আমরা মনে করছি, শুধু সচেতন করাই যথেষ্ট নয়, এই দুর্যোগের সময় আমাদের আরও কিছু করার আছে। বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে যে ১৭ জন ক্রিকেটারকে রাখা হয়েছে এবং জিম্বাবুয়ে সিরিজসহ সম্প্রতি জাতীয় দলে খেলেছে, এমন আরও ১০ জনÑ সব মিলে ২৭ ক্রিকেটার এক মাসের বেতনের ৫০ শতাংশ দিয়ে আমরা সহায়তা করছি। কর কেটে রাখার পর মোট থাকবে ২৫ লাখ টাকার কিছু বেশি।’
এমন দুর্যোগপূর্ণ সময়ে যার যার জায়গা থেকে সবাইকে এগিয়ে আসারও আহ্বান জানিয়ে রাখলেন তামিম, ‘করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই যতটা ব্যাপক, এই অর্থ হয়তো খুব বড় অঙ্ক নয়। তবে বিন্দু বিন্দু জল মিলেই হয়ে ওঠে মহাসাগর। আমরা সবাই যদি নিজেদের জায়গা থেকে চেষ্টা করি, যত ছোট অবদানই হোক, সবাই মিলে সেটিই বড় হয়ে উঠবে। চারপাশের সবার সমালোচনায় মেতে না থেকে আমরা যদি নিজেরা দায়িত্ব নেই ও নিজেদের সাধ্যমতো অবদান রাখি, তাহলেই করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে এই লড়াইয়ে আমাদের জয় সম্ভব। সবাই ঘরে থাকুন, নিরাপদ থাকুন। নিজে ভালো থাকুন, দেশকে ভালো রাখুন।’
তামিমের সুরেই কথা বলেছেন মুশফিকুর রহিম। ফেসবুকে দেওয়া পোস্টে তার বার্তা, ‘করোনাভাইরাস প্রতিরোধে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে যার যার জায়গা থেকে। সেটির অংশ হিসেবে আমরা ক্রিকেটাররা একটা উদ্যোগ নিতে যাচ্ছি, যেটি হয়তো অনুপ্রাণিত করতে পারে আপনাদেরও। আমরা এই মাসের বেতনের ৫০ শতাংশ দিয়ে একটা তহবিল গঠন করেছি। এই তহবিল ব্যয় হবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণে আক্রান্তদের জন্য।’
সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘করোনার বিরুদ্ধে জিততে হলে আমাদের এই উদ্যোগ হয়তো যথেষ্ট নয়। কিন্তু যাদের সামর্থ্য আছে সবাই যদি একসঙ্গে এগিয়ে আসেন কিংবা ১০ জনও যদি এগিয়ে আসেন, এই লড়াইয়ে আমরা অনেক এগিয়ে যাব। হ্যাঁ, এরই মধ্যে করোনা মোকাবেলায় অনেকে এগিয়ে এসেছেন। তাদের অবশ্যই সাধুবাদ জানাই। কিন্তু বৃহৎ পরিসরে যদি আরও অনেকে এগিয়ে আসে, তাহলে আমরা এই লড়াইয়ে জিততে পারব ইনশাল্লাহ।’ ক্রিকেটারদের এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে ফেসবুকে মাশরাফি লিখেছেন, ‘ধন্যবাদ তিন অধিনায়কÑ মুমিনুল, মাহমুদউল্লাহ ও তামিম। দুর্দান্ত কাজ বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। বিশেষ ধন্যবাদ খান সাহেবকে (তামিম)।’







সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]