ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা শুক্রবার ৩ এপ্রিল ২০২০ ১৮ চৈত্র ১৪২৬
ই-পেপার শুক্রবার ৩ এপ্রিল ২০২০

বাংলাদেশিসহ ১০ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে
মালয়েশিয়ায় ধরপাকড় বন্ধ ঘোষণা
মালয়েশিয়া সংবাদদাতা
প্রকাশ: শুক্রবার, ২৭ মার্চ, ২০২০, ৯:৪৬ পিএম আপডেট: ২৬.০৩.২০২০ ১১:৪৯ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 36142

করোনাভাইরাস আতঙ্কে মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত অবৈধ অভিবাসীদের বিরুদ্ধে অভিযান বন্ধ ঘোষণা করেছে ইমিগ্রেশন বিভাগ। কিন্তু এই প্রথম মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ ১০ জনের মধ্যে জ্বর ও সর্দি কাশির উপসর্গ পাওয়াই হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন স্বাস্থ্য বিভাগ। এ ছাড়াও সে দেশের রাজা-রানী ও হোম কোয়ারেন্টাইনে চলে গেছেন।
রাজধানীর কুয়ালালামপুরের পাইকারি বাজার সেলায়াং পাসারে ৪০০ শতাধিক বিদেশিদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর দশজনের মধ্য জ্বর কাশির উপসর্গ পাওয়াই তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেন সিটি করপোরেশন ও স্বাস্থ্য বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্তরা। বুধবার কুয়ালালামপুর সিটি করপোরেশন (ডিবিকেএল) ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় (এমওএইচ) পরিচালিত দুই ঘণ্টার যৌথ অভিযানের সময় তাদের শনাক্ত করা হয়। ফেব্রæয়ারি মাসের ২৮ থেকে ২ মার্চে অনুষ্ঠিত সেরি পেতালিং মসজিদে তাবলিগ জামাতে অংশ নিয়ে ছিলেন তারা। তাদেরকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
ডিবিকেএল করপোরেট পরিকল্পনা বিভাগের পরিচালক খায়রুল আজমির আহমদ জানান, অভিযানের সময় বিদেশি কর্মীরা তাদের দোকানগুলো বন্ধ করে দিচ্ছিল। এ দোকানগুলো রাত ১০টা থেকে পরেরদিন সকাল পর্যন্ত চালু থাকে। তিনি আরও বলেন, আমরা যখন সেখানে পৌঁছাই তখন তারা আমাদের দেখে পালানোর চেষ্টা করছিল। কারণ তারা ভেবেছে তাদেরকে গ্রেফতার করতে এসেছি। কিন্তু আমাদের একমাত্র উদ্দেশ্য ছিল তাদেরকে কোভিড-১৯-এর হেলথ স্ক্রিনিং টেস্ট বা করোনার উপস্থিতি পরীক্ষা করার। এ সময় ৪শ বিদেশি কর্মীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার পর ১০ জন কর্মীকে চিহ্নিত করি।
যাদের জ্বর, কাশি ও ফ্লু জাতীয় রোগের উপস্থিতি ছিল। ১০ জন কর্মীর মধ্যে মিয়ানমার, বাংলাদেশ ও ইন্দোনেশিয়ার নাগরিক বলে জানান তিনি। তবে কোন দেশের কতজন সেটা নিশ্চিত করেননি। ডিবিকেএল সবসময় শহরের বাজারগুলোতে কর্মীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে সহযোগিতা করে আসছে বলে জানান তিনি।
এ দিকে মালয়েশিয়ায় অবৈধ প্রবাসীদের গ্রেফতার করা হবে না বলে জানিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী সাবরি। মালয়েশিয়া যখন ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে দিন অতিক্রম করে যাছে। পুরো মালয়েশিয়ায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সরকার লকডাউনসহ বিভিন্ন বড় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। হাসপাতালে আক্রান্তদের চিকিৎসার ক্ষেত্রেও কোনো ত্রæটি রাখছে না। বিপুল পরিমাণে বাজেট করা হয়েছে করোনা প্রতিরোধে। তাবলিগ ইজতেমায় অংশগ্রহণকে কেন্দ্র করে প্রায় ১ হাজারের বেশি আক্রান্ত হয়েছে বলে জানান।
এ দিকে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দেশটিতে চলাচলের ওপর আরোপিত বিধি-নিষেধের মেয়াদ আরও দুই সপ্তাহ বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকার প্রেক্ষিতে বুধবার তিনি এই ঘোষণা দেন। বৃহস্পতিবার সে দেশের মন্ত্রিপরিষদের ২ মাসের বেতন কর্তনের ঘোষণা দেন। বৃহস্পতিবার শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মালয়েশিয়ায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০৩১ জন। আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২১৫ জন এবং মৃত্যুবরণ করেন ২৩ জন।
    




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]