ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ৩১ মে ২০২০ ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
ই-পেপার রোববার ৩১ মে ২০২০

পাপের কারণে যে ক্ষতি হয়
মাহবুবুর রহমান নোমানী
প্রকাশ: সোমবার, ৩০ মার্চ, ২০২০, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 94

পাপ সবসময়ই খারাপ। পাপের পরিণামও খুব খারাপ। পাপের প্রায়শ্চিত্ত একসময় অবশ্যই ভোগ করতে হয়। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তা পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিয়েছেন, ‘যে মন্দ কাজ করবে, তাকে সেই কাজের শাস্তি ভোগ করতে হবে।’ (সুরা নিসা : ১২৩)। পাপের শাস্তি যে শুধু পরকালে হবে তা নয়। দুনিয়াতেও মানুষ পাপের শাস্তি ভোগ করে। আল্লাহ বলেন, ‘আমি অবশ্যই তাদেরকে গুরু শাস্তির পূর্বে লঘু শাস্তি আস্বাদন করাব, যাতে তারা ফিরে আসে।’ (সুরা সেজদা : ২১)। আয়াতে লঘু শাস্তি বলে দুনিয়ার বিপদাপদ ও রোগব্যাধিকে বোঝানো হয়েছে। আর গুরু শাস্তি দ্বারা আখেরাতের কঠিন শাস্তি বোঝানো হয়েছে। পাপের কারণে মানুষ দুনিয়াতে যেসব শাস্তি ও ক্ষতির সম্মুখীন হয় তার কয়েকটি এখানে উল্লেখ করা হলোÑ
বালা-মুসিবত : পাপের কারণে বিভিন্ন বালা-মুসিবত ও বিপর্যয় দেখা দেয়। আল্লাহ বলেন, ‘জলে ও স্থলে মানুষের কৃতকর্মের দরুণ বিপর্যয় ছড়িয়ে পড়েছে। আল্লাহ তাদেরকে তাদের কর্মের শাস্তি আস্বাদন করাতে চান, যাতে তারা ফিরে আসে।’ (সুরা রোম : ৪১)। তাফসিরে রুহুল আমানিতে উল্লেখ রয়েছে, ‘বিপর্যয়’ বলে দুর্ভিক্ষ, মহামারী, অগ্নিকাণ্ড, পানিতে নিমজ্জিত হওয়া, সব কিছু থেকে বরকত উঠে যাওয়া, উপকারী বস্তুর উপকার কম হওয়া ইত্যাদি আপদ-বিপদ বোঝানো হয়েছে।
অন্তরে জং পড়ে : হাদিসে এসেছে, বান্দা যখন পাপ করে তখন তার অন্তরে একটি কালো দাগ পড়ে। অতঃপর আরেকটি পাপ করলে আরেকটি দাগ পড়ে। এভাবে একপর্যায়ে কৃষ্ণবিন্দুতে পুরো অন্তর আচ্ছাদিত হয়ে যায়। তখন সে অন্তরে পাপের অনুভূতিটুকুও অবশিষ্ট থাকে না। যেমন, দুর্গন্ধের আকরে যাদের বসবাস দুর্গন্ধ তাদের সয়ে যায়। তারা তখন দুর্গন্ধ আর সুগন্ধের মধ্যে পার্থক্য করতে পারে না। তেমনিভাবে পাপি অন্তর ভালো ও মন্দের পার্থক্য বোঝে না। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ বলেন, ‘কখনও না, বরং তারা যা করে, তাই তাদের অন্তরে মরিচা ধরিয়ে দিয়েছে।’ (সুরা তাতফিফ : ১৪)
বিবেক বিকৃতি : মানুষ যখন অবিরাম পাপ করতে থাকে তখন তার বিবেক বিকৃত হয়ে যায়। তার চিন্তা-ভাবনা তখন ভুল পথে চলতে থাকে। ভালো কথাকে তখন তার কাছে মন্দ মনে হয়। আর মন্দ কথাকে ভালো মনে হয়। দেখা যায়, অনেকে পাপ কাজ করে নানারকম ব্যাখ্যা খুঁজতে থাকে। যুক্তি দাঁড় করাতে চায় যে, এটা পাপ হবে কেন? এর মধ্যে তো এই উপকার আছে। ইবলিস আল্লাহর নির্দেশের সামনে যুক্তি পেশ করে বলেছিল, ‘আপনি আমাকে আগুন থেকে সৃষ্টি করেছেন আর আদমকে সৃষ্টি করেছেন মাটি থেকে। অতএব, আমি আদম থেকে উত্তম। তাকে সেজদা করতে পারব না।’ পাপের ফলে তার বিবেক বিকৃত হয়ে গিয়েছিল। সে এ কথা ভাবেনি যে, ‘যিনি আগুন সৃষ্টি করেছেন তিনিই তো মাটি সৃষ্টি করেছেন।’ সুতরাং তার নির্দেশ পালনে শ্রেষ্ঠত্বের কথা ভাবনার অবকাশ আছে?
রোগ-ব্যাধির আধিক্য : হাদিসে বর্ণিত হয়েছে, ‘মানুষের মাঝে যখন পাপকর্ম, অশ্লীলতা ও উলঙ্গপনার বিস্তার ঘটবে তখন আল্লাহ তায়ালা মানুষকে এমন সব রোগ-ব্যাধিতে আক্রান্ত করবেন যেসব রোগের নাম তাদের পূর্বপুরুষরা কখনও শোনেনি।’ (ইবনে মাজা: ৪০১৯)
জীবনে অস্থিরতা নেমে আসে : পাপের কারণে জীবন থেকে শান্তি ও স্বস্তি উবে যায়। সর্বদা অস্থিরতা ও টেনশনে ভুগতে হয়। মানুষ ব্যাপকভাবে যে ভুলটি করে তা হচ্ছে, সে পাপের মধ্যে শান্তি তালাশ করতে থাকে। অথচ পাপের মধ্যে শান্তি নেই, আছে অস্থিরতা ও পেরেশানি।
অতএব, আমাদেরকে যাবতীয় পাপকর্ম থেকে বিরত থাকতে হবে। কৃত পাপের জন্য তওবা করতে হবে এবং ভবিষ্যতে না পাপ করার দৃঢ়সংকল্প করতে হবে। আল্লাহ পাক আমাদের তওফিক দান করুন।







সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]