ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা রোববার ৩১ মে ২০২০ ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
ই-পেপার রোববার ৩১ মে ২০২০

সময়ের আলো সাক্ষাৎকার
আধুনিক পৌরসভা হিসেবে গড়ে তোলা হবে দাগনভূঞাকে
মাঈন উদ্দিন পাটোয়ারী ফেনী
প্রকাশ: বুধবার, ১ এপ্রিল, ২০২০, ১১:৫২ পিএম আপডেট: ০১.০৪.২০২০ ১:৪১ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 17

ওমর ফারুক খান
মেয়র, দাগনভূঞা পৌরসভা, ফেনী

দৈনিক সময়ের আলোকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পৌর মেয়র ওমর ফারুক খান বলেছেন, একটি আধুনিক সমৃদ্ধ পৌরসভা হিসেবে গড়ে তোলা হবে দাগনভূঞা শহরকে। তিনি বলেন, এ লক্ষ্য পূরণে অবিরাম কাজ করে যাচ্ছি। এ ক্ষেত্রে সবার সহযোগিতা চাই। রোববার সময়ের আলোকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মেয়র এ কথা বলেন।
৯টি ওয়ার্ড ও ১৩ বর্গকিলোমিটার আয়তন নিয়ে ২০০০ সালে দাগনভূঞা পৌরসভার যাত্রা শুরু হয়। এ পৌর শহরে প্রায় ৭৫ হাজার লোকের বসবাস। এতে মোট ভোটার রয়েছে ২৫ হাজার ৩২৬ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৩ হাজার ৯০৭ জন এবং নারী ভোটার ১১ হাজার ৪১৯ জন। ২০১১ সালে পৌরসভাটি প্রথম শ্রেণিতে উন্নীত হয়। ওই বছরের ২৭ জানুয়ারি মেয়র পদে নির্বাচিত হন ওমর ফারুক খান। তিনি ফের ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে বিএনপি প্রার্থী কাজী সাইফুর রহমান স্বপনকে পরাজিত করে দ্বিতীয়বারের জন্য মেয়র নির্বাচিত হন।
মেয়র ওমর ফারুক খান বলেন, আমি সর্বপ্রথম মেয়র পদে দায়িত্ব নেওয়াকালীন পৌরসভা ছিল জরাজীর্ণ। এরপর একনিষ্ঠভাবে কাজ করে পৌরসভাকে কিছুটা গুছিয়ে এনেছি। এ পৌরসভাকে একটি আধুনিক, মডেল ও পরিপূর্ণ পৌরসভা গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। পৌর এলাকার সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য কিছু প্রকল্প গ্রহণ করেছি। এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে পৌরবাসী একটি সমৃদ্ধ শহর পাবে।
তিনি বলেন, পৌরসভার সব রাস্তা সংস্কার ও পাকা করেছি। জিরোপয়েন্ট থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছি। সব সড়কে বাতির ব্যবস্থা করেছি। ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন করেছি। কৃষ্ণ রামপুরে ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে বিদ্যুতের সাব-স্টেশন স্থাপন করেছি। জনস্বাস্থ্য বিভাগ থেকে সুপেয় পানির ব্যবস্থার জন্য ওয়েস্ট রি-সাইক্লিন ওয়াটার প্রজেক্টের জন্য ৪৪ কোটি টাকার ব্যবস্থা করেছি। দাগনভূঞার দুঃখ দাদনা খাল জবরদখলমুক্ত ও সংস্কার করেছি। উপজেলা চত্বরে বিজয় স্তম্ভ ও মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ করেছি। পৌর প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছি। পৌর এলাকায় সব প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন, ইকবাল মেমোরিয়াল কলেজ ও আতাতুর্ক মডেল হাইস্কুলকে জাতীয়করণে মুখ্য ভূমিকা পালন করেছি।
মেয়র বলেন, এ ছাড়া রাস্তাঘাট নির্মাণ ও সংস্কার, সড়ক বাতি স্থাপন, ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন, বিদ্যুতের সাব-স্টেশন স্থাপনসহ উন্নয়নমূলক অনেক কাজ করেছি। পৌর এলাকার যুব সমাজকে মাদকমুক্তকরণ প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, পারিবারিকভাবেই আমি খেলাধুলামুখী। নিজেই একটি ফুটবল টিম পরিচালনা করি। মাদকের বিরুদ্ধে আমার জিরো টলারেন্স রয়েছে। মেয়র নির্বাচিত হওয়ার পর আমার ভূমিকায় দাগনভূঞা বাজার থেকে মাদকের দোকান সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া যুব সমাজকে মাদক থেকে মুক্ত রাখতে তাদের ক্রীড়াসামগ্রী প্রদানসহ সচেতনতামূলক নানা কর্মসূচিও পালিত হয়ে আসছে।
শিক্ষিত বেকার নারীদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ব্যক্তিগতভাবে প্রতিবছর সেলাই মেশিন দেওয়ার পাশাপাশি প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও করেছেন মেয়র। এসব প্রশিক্ষণে ভালো করা সাপেক্ষে সনদ দেওয়া হয়। ওমর ফারুক খান আরও বলেন, দাগনভূঞাকে সর্বপ্রথম বাল্যবিয়ে মুক্ত ঘোষণা করা হয়। এ ছাড়া যৌন হয়রানি প্রতিরোধে অভিযোগ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।
তিনি বলেন, পৌর এলাকায় গো-জবাইয়ের স্থান, আরও একটি পৌর মার্কেট নির্মাণ এবং সড়কগুলো প্রশস্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে। এ ছাড়া ফায়ার স্টেশন নির্মাণ, দাদনার খাল খনন করে লেকে রূপান্তর ও যানজট নিরসনে সড়কে ডিভাইডার নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।
মেয়র বলেন, পৌরবাসীর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছি। স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন ব্যবস্থার উন্নয়নে কয়েকটি প্রকল্প অনুমোদনের জন্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া ড্রেনেজব্যবস্থার উন্নয়নে ব্যাপক পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে। এ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে শহরে আর জলাবদ্ধতা থাকবে না। তিনি বলেন, অন্যদিকে দাগনভূঞা পৌরসভার উদ্যোগে প্রতিবছর সুন্নতে খতনা করানোসহ বিভিন্ন ধরনের সেবামূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করা হয়ে থাকে।
উল্লেখ্য, ওমর ফারুক খান দাগনভূঞা পৌরসভার রামানন্দপুর গ্রামের চৌধুরী খান বাড়ির ওসমান গণি ও সাবেক ইউপি সদস্য মৃত মঞ্জুরা বেগমের ছেলে। ১৯৯৯ সালে দাগনভূঞা ইকবাল মেমোরিয়াল কলেজ থেকে বিএসএস পাস করেন। ওমর ফারুক খান দাগনভূঞা পৌরসভার মেয়র পদে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি দাগনভূঞা কেন্দ্রীয় মসজিদের সভাপতি পদে দায়িত্ব পালনসহ বিভিন্ন সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন। এ ছাড়া তিনি বর্তমানে দাগনভূঞা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের পদে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।




সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]