ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ৯ জুলাই ২০২০ ২৪ আষাঢ় ১৪২৭
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ৯ জুলাই ২০২০

কাপাসিয়ায় নিয়মের বালাই নেই, বাড়ছে করোনা ঝুঁকি
কাপাসিয়া (গাজীপুর) প্রতিনিধি
প্রকাশ: শনিবার, ২৩ মে, ২০২০, ১২:০০ এএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 12

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকিতে রয়েছে গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলাবাসী। আক্রান্তের সংখ্যা ধারাবাহিকভাবে বাড়ছে। উপজেলায় লকডাউন ছাড়ানোর পর ১১ দিনে নতুন করে আরও ১৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। যেখানে ২২ মে ৩ জন, ১৯ মে ২ জন, ১৭ মে ২ জন, ১৪ মে ৩ জন ও ১২ মে ২ জন ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে স্থানীয় শিক্ষকসহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন নার্সও রয়েছেন। এ নিয়ে মোট ৮৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে।  নতুন কেউ সুস্থ না হলেও লকডাউন খোলার আগে ৭০ জনের মধ্যে ৬৯ জনই সুস্থ হয়েছেন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১ জন। যা ওই ব্যক্তির মৃত্যুর পর শনাক্ত হয়েছে। ধীরে ধীরে করোনা আক্রন্তের সংখ্যা ছড়িয়ে পড়ছে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে। আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও কমছে সচেতনতা। ঈদকে কেন্দ্র করে জমে উঠেছে সকল হাট বাজার। বিপণী বিতারগুলোতে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়। সরকারি নিয়ম নীতি অমান্য করে স্বাস্থ্য বিধি না মেনে চলছে বেচাকেনা।   
প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনী মানুষকে সচেতন করার কাজ করছে। পরিচালনা করা হচ্ছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। করা হচ্ছে জরিমানা। ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, নরসিংদী থেকে যানবাহন ও লোকজন কাপাসিয়ায় যাতে প্রবেশ না করতে পারে সে জন্য উপজেলায় সূর্য নারায়ণপুর, টোক, চাঁদপুর, চেরাগ আলীসহ প্রায় ৬টি স্থানে সড়কে বসানো হয়েছে পুলিশ চেকপোস্ট। ঈদকে কেন্দ্র করে বুধবার থেকে উপজেলার ভেতরে প্রবেশ-বাইরে নজরদারি কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে। কিন্তু নানা অজুহাতে পার পেয়ে যাচ্ছে সাধারণ মানুষ। কোনোভাবেই সচেতন করা যাচ্ছে না তাদের।
সরেজমিনে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় দেখা গেছে, করোনা প্রাদুর্ভাব বেশি হলেও নূন্যতম সচেতনতা নেই মানুষের মাঝে। স্থানীয় প্রশাসন করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে উপজেলায় প্রবেশের প্রতিটি সড়কে পুলিশ চেকপোস্ট বসিয়েছে। তাতেও মিলছে না সুফল। নানা অজুহাতে ও উপরস্থ কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন তদবিরে চেকপোস্ট থেকে ছাড় পেয়ে যাচ্ছে অনেকেই। প্রধান সড়কে চেকপোস্ট বসানো হলেও বিভিন্ন শাখা উপশাখা সড়ক দিয়ে যানবাহনসহ গ্রামে ফিরছে অধিকাংশ লোকই। অতিরিক্ত ভাড়ার আশায় চালকরা ঝুঁকি নিয়ে লোকজন পৌঁছে দিচ্ছে বাড়িতে। চেকপোস্টে যানবাহন আটকানো হলে পায়ে হেঁটে বাড়ি ফিরছে মানুষ। গ্রামের বাড়ি বাড়ি খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, শহরে থাকা অধিকাংশ লোকই ঈদের জন্য সম্প্রতি পরিবারসহ বাড়ি ফিরেছেন। তাই চেকপোস্ট বসানোর ফলে সড়কে যানবাহন কমলেও কমেনি ঝুঁকি।





সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]