ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ৯ জুলাই ২০২০ ২৪ আষাঢ় ১৪২৭
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ৯ জুলাই ২০২০

তবুও ঈদ, তবুও আনন্দ
জাকির উসমান
প্রকাশ: সোমবার, ২৫ মে, ২০২০, ১:২৫ এএম আপডেট: ২৫.০৫.২০২০ ২:২৪ এএম | অনলাইন সংস্করণ  Count : 107

এক অদ্ভুত আঁধারে ছেয়ে আছে পৃথিবী। ঘরবন্দি মানুষ। অবরুদ্ধ গোটা বিশ্ব। থেমে গেছে সুর। বাজেনি উৎসবের বীণা। মহামারি করোনাভাইরাসে পৃথিবীর দেশে দেশে এক ভিন্ন আবহে, ভিন্ন মাত্রায় উদযাপিত হচ্ছে অন্যরকম ঈদ।

রোববার তিরিশটি রোজা পূর্ণ করে শাওয়ালের এক তারিখ আজ সোমবার দেশে উদযাপিত হচ্ছে মুসলমানদের বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর।

তবে এবার আর সেই চিরাচরিত দৃশ্য নেই। মাঠে মাঠে নেই বৃহত্তর ঈদ জামাত। দেখা যায়নি বাসে-ট্রেনে-লঞ্চে উপচে পড়া ভিড়ে গাদাগাদি করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নাড়ির টানে ঘরে ফেরা মানুষের দৃশ্য। মার্কেটে-শপিং মলে ছিল না ভিড়। বেচাবিক্রির ধুম পড়েনি। ঈদে প্রতিবারের মতো ছিল না কেনাকাটা।

অবরুদ্ধ-ঘরবন্দি জীবনে এ এক অন্যরকম ঈদ। তবুও ঈদ। তবুও আনন্দ। সরকারি নির্দেশনা মেনে সারা দেশে মসজিদে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। দেশের প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী ঈদগাহগুলো এবার খাঁ খাঁ করবে মুসল্লি শূন্যতায়।

এ সময় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আদায় করা হবে ঈদের নামাজ। নামাজের পর পরম আনন্দে খুশিতে কোলাকুলির সেই দৃশ্য দেখা যাবে না এবার। দলবেধে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাওয়া হবে না নেমন্তন্ন। ঈদের পরে বিনোদন কেন্দ্র বা পর্যটনস্থলে ভিড় জমাবে না মানুষ। থাকবে না কুটুমবাড়ি বেড়াবার তোড়জোড়। মুসলিমবিশ্বে এ এক অন্যরকম আনন্দ-বেদনার ঈদ।

ঈদ একদিকে আনন্দের বারতা নিয়ে এসেছে মুসলমানদের জীবনে। অন্যদিকে করোনাভাইরাসে ভয়াল সময়ের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে মানুষ আজ ভীত-বেদনার্ত-সন্ত্রস্ত। আনন্দ-বেদনার এ এক ভিন্ন ঈদ। 

দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনার পর ঈদুল ফিতর সৃষ্টিকর্তার পক্ষ থেকে পরম এক আনন্দ-উপহার। রোজাদার মানুষের জন্য এ এক আনন্দপ্রাপ্তি। নজরুলের কালজয়ী সেই গান বাজছে মানুষের মনে ‌'ও মন রমজানের ঐ রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ/তুই আপনাকে আজ বিলিয়ে দে, শোন আসমানী তাগিদ।'

এবার এ আনন্দের কোথায় যেন তবুও কেটে গেছে সুর। সেই সুখসংগীত যেন এবার বাজবে না কোথাও। তবে মানুষের মনের আনন্দ রুখে, এমন সাধ্য কার। মুসলমানদের মনে পরম আনন্দের বারতা নিয়ে আবার এসেছে ঈদুল ফিতর।

রবীন্দ্রনাথ গানে বলেছেন, ‌'আছে দুঃখ, আছে মৃত্যু, বিরহদহন লাগে।/তবুও শান্তি, তবু আনন্দ, তবু অনন্ত জাগে।' সত‌্যিই এত কষ্ট-জরা-শোকেও তবুও ঈদ, তবুও আনন্দ।

যত আঁধারই আসুক, ‌'তবু প্রাণ নিত্যধারা, হাসে সূর্য চন্দ্র তারা।'

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অনুরোধ
ঈদের নামাজ আদায়ের সময় মসজিদে কার্পেট বেছানো যাবে না। নামাজের আগে জীবাণুনাশক রাসায়নিক পদার্থ দিয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে। প্রয়োজনে একই মসজিদে একাধিক জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

ধর্ম মন্ত্রণালয় বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, করোনার সংক্রমণ রোধে অজু করার স্থানে সাবান অথবা হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে। মসজিদের প্রবেশপথে সাবান অথবা হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখতে হবে। যারা মসজিদে নামাজ আদায় করতে আসবেন, তারা যেন বাসা থেকে অজু করে আসেন। অজু করার সময় ২০ সেকেন্ড করে হাত ধুতে হবে। মসজিদে নামাজ আদায় করতে হলে অবশ্যই মাস্ক পরে আসতে হবে।

ঈদের নামাজ আদায় করার পর কোলাকুলি কিংবা হাত মেলানো থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করেছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

সরকারি নির্দেশনা মেনে ঈদের নামাজ
করোনা মোকাবিলায় ও সংক্রমণ বিস্তার রোধে সরকারের নির্দেশনায় এবার খোলা মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। ঈদ জামাত হবে মসজিদের ভেতরে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে।

এবার হাইকোর্ট সংলগ্ন জাতীয় ঈদগাহে ঈদের জামাত হচ্ছে না। হচ্ছে না শত বছরের ঐতিহ্য ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ময়দানের ঈদ জামাতও। তবে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ঈদের ৫টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

বায়তুল মোকাররমে ৫ জামাত
ইসলামিক ফাউেন্ডশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বায়তুল মোকাররমে পবিত্র ঈদুল ফিতরের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৭টায়। এ জামাতের ইমামতি করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মাওলানা মিজানুর রহমান। মুকাব্বির থাকবেন মুয়াজ্জিন হাফেজ কারী কাজী মাসুদুর রহমান।

দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়। এ জামাতের ইমামতি করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মুহিবুল্লাহিল বাকী নদভী।

তৃতীয় জামাত সকাল ৯টা অনুষ্ঠিত হবে। এই জামাতের ইমামতি করবেন পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা এহসানুল হক।
সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে চতুর্থ জামাত। এ জামাতে ইমামতি করবেন পেশ ইমাম মাওলানা মহিউদ্দিন কাসেম।

পঞ্চম ও সর্বশেষ জামাত সকাল ১০টা ৪৫ মিনিটে অনুষ্ঠিত হবে। এ জামাতের ইমামতি করবেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুহাদ্দিস হাফেজ মাওলানা ওয়ালিয়ুর রহমান খান।

এই ৫টি জামাতে কোনও ইমাম অনুপস্থিত থাকলে বিকল্প ইমাম হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুফতি মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল্লাাহ।

ডিএমপি’র নির্দেশনা
মসজিদের ওযুখানা ব্যবহার না করে প্রত্যেককে নিজ নিজ বাসস্থান থেকে ওযু করে মসজিদে আসাসহ ১৪টি নির্দেশনা দিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। এবার খোলা স্থানের পরিবর্তে কাছের মসজিদে অনুষ্ঠিত ঈদ জামাতে শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে নির্দেশনায় বলা হয়েছে।

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে আত্মীয়-স্বজন ও প্রতিবেশীদের বাসায় যাতায়াত না করার পাশাপাশি বিনোদন কেন্দ্রে ঘোরাঘুরি না করে নিজ ঘরে ঈদ উদযাপন করতেও বলা হয়েছে। প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ১৪টি নির্দেশনার কথা জানায় ডিএমপি।

ঈদে কোলাকুলি না করার আহবান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে এবার ঈদের নামাজ শেষে কোলাকুলি থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

করোনাভাইরাস বিষয়ক নিয়মিত হেলথ বুলেটিনে অধিপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা রোববার এ আহ্বান জানান।

এছাড়া কমপক্ষে তিন ফুট দূরত্ব বজায় রেখে ঈদের জামায়াতে শরিক হওয়ার জন্যও তিনি আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা
দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রোববার সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে তিনি দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মুসলমানদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আমি বাংলাদেশের জনগণসহ বিশ্ববাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাই। ঈদ মোবারক। ঈদুল ফিতর মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব হলেও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বাংলাদেশে সব ধর্ম এবং বর্ণের মানুষ এ উৎসবে সমানভাবে শামিল হন। ঈদের আনন্দ সবাই ভাগাভাগি করে উপভোগ করেন।’





এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]