ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা বৃহস্পতিবার ৯ জুলাই ২০২০ ২৫ আষাঢ় ১৪২৭
ই-পেপার বৃহস্পতিবার ৯ জুলাই ২০২০

নাসিরনগরে প্রতিপক্ষের বাড়িতে হামলা-লুটপাটের অভিযোগ
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
প্রকাশ: বুধবার, ৩ জুন, ২০২০, ১১:৪৮ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 10

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার গোকর্ণ ইউনিয়নের জেঠাগ্রামে বেশ কিছু বাড়িতে হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার রাতে সাহাবুদ্দিন (২৫) নামে এক আহত ব্যক্তির মৃত্যুর গুজবে প্রতিপক্ষের লোকজনের বাড়িঘর ভাঙচুর চালানো হয়।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ১৮ এপ্রিল উপজেলার জেঠাগ্রামের সূচীউড়ায় নাগরের গোষ্ঠী ও বড়বাড়ির গোষ্ঠীর লোকজনের মধ্যে তিতাস নদীর পাড়ে ধান মাড়াইকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে পুলিশসহ ৬৫ জন আহত হয়। এ সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ তিনটি মামলা করে। এ পর্যন্ত ১২ জনেরও বেশি আসামিকে গ্রেফতার করেছে। সোমবার ঘটনার রাতে প্রতিপক্ষের লোকজন পুলিশ নিয়ে আসামি ধরার জন্য সুচীউড়া গ্রামে গেলে রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা সাহাবুদ্দিনের ওপর ইসহাক মিয়াসহ কয়েকজন হামলা চালায়। একপর্যায়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায়। আহত সাহাবুদ্দিনকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরে জেলা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এদিকে এলাকায় গুজব রটে আহত সাহাবুদ্দিন মারা যাওয়ার। এই গুজবকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের বেশ কিছু বাড়িঘরে হামলা ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে।
ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের লোকজন জানান, প্রতিপক্ষের লোকজন আমাদের বসতঘরে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট করে। হামলাকারীরা আমাদের গরু, ফ্রিজ, টিভি, টাকা পয়সা, স্বর্ণালঙ্কার লুট করে নিয়ে যায়। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক ছোয়াব আহমেদ হৃতুল জানান, নিহত হওয়ার গুজবে রাতে প্রতিপক্ষের বাড়িঘরে হামলা-ভাঙচুর ঘটনা কে বা কারা হামলা করেছে তা বলা মুশকিল। তবে পুলিশসহ আমি বেশ কিছু বাড়িঘর পরিদর্শন করে দেখেছি। নাসিরনগর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) মো. সাজেদুর রহমান জানান, জেঠাগ্রামে বেশ কিছু বাড়িঘরে হামলা-ভাঙচুর ঘটনা ঘটেছে। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। ক্ষতিগ্রস্তদের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।







সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ
নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]