ই-পেপার বিজ্ঞাপনের তালিকা সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ ১১ কার্তিক ১৪২৭
ই-পেপার সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০

ফ্রান্সে উচ্চশিক্ষা
প্রকাশ: শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১১:৩৫ পিএম | প্রিন্ট সংস্করণ  Count : 15

বিশে^র সবচেয়ে পুরনো জাতি-রাষ্ট্রের একটি ফ্রান্স। পশ্চিম ইউরোপের এ দেশটি বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, শিক্ষা, সংস্কৃতিতে সমৃদ্ধ। উন্নত জীবনযাত্রা, শক্তিশালী অর্থনীতি ও মানসম্মত সময়োপযোগী শিক্ষার পরিবেশ থাকায় ফ্রান্সে উচ্চশিক্ষা লাভের জন্য বাংলাদেশসহ বিশে^র বিভিন্ন দেশের শিক্ষার্থীরা আগ্রহী। ফ্রান্সের শিক্ষার মান খুবই উন্নত এবং এর ডিগ্রি আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। ফ্রান্সের অনেক বিশ^বিদ্যালয় বিশ^ র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে রয়েছে। কানাডা কিংবা অস্ট্রেলিয়ার পাশাপাশি উচ্চশিক্ষার জন্য বাংলাদেশের অনেকেই বেছে নিচ্ছেন ইউরোপের এ দেশকে। তাই প্রতিবছর প্রচুর বিদেশি শিক্ষার্থী পড়তে যান ফ্রান্সে। আধুনিক শিক্ষার পাশাপাশি সাংস্কৃতিকভাবে উন্নত ফ্রান্সে শিক্ষা গ্রহণের পর আছে বিশ^ব্যাপী ক্যারিয়ার গড়ে তোলার সুযোগ। অনেক বছর ধরেই ফ্রান্স গণিতশাস্ত্র, জ্যোতি পদার্থবিজ্ঞান, জীববিজ্ঞান, চিকিৎসাশাস্ত্র, জেনেটিকস, পদার্থবিদ্যা এবং অন্যান্য অনেক বিষয়ের জন্য বিখ্যাত।
ফ্রান্সে উচ্চশিক্ষা নেওয়ার জন্য আছে বিখ্যাত অনেক কলেজ ও বিশ^বিদ্যালয়। যেমনÑ কলেজ অব ফ্রান্স, ইকোল নরম্যাল সুপার, ইকোল পলিটেকনিক, ইউনিভার্সিটি অব বোর্দো ওয়ান, ইউনিভার্সিটি অব গ্রেনোবল ওয়ান, ইউনিভার্সিটি অব লিয়ঁ ওয়ান, ইউনিভার্সিটি অব মন্টপেলার টু, ইউনিভার্সিটি অব প্যারিস ফোর, ইউনিভার্সিটি অব প্যারিস সিক্স, ইউনিভার্সিটি অব প্যারিস সেভেন, ইউনিভার্সিটি অব প্যারিস ইলেভেন, ইউনিভার্সিটি অব স্ট্রাসবোর্গ ওয়ান, ইউনিভার্সিটি অব টুলোঁ থ্রিসহ আরও অনেক।
উচ্চশিক্ষার জন্য দেশটির বিশ^বিদ্যালয়ে ব্যাচেলর, মাস্টার্স, পোস্টগ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা, ডিপ্লোমা সার্টিফিকেট কোর্স, পিএইচডিসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কোর্স পদ্ধতি চালু রয়েছে। তা ছাড়া এমবিএ, মেডিসিন ইত্যাদি বিষয়ও পড়তে পারবেন ফ্রান্সে।
সাধারণত ব্যাচেলর কোর্সের মেয়াদ চার বছর, মাস্টার্স কোর্সের মেয়াদ এক বছর ও অন্যান্য কোর্স বিভিন্ন মেয়াদে পরিচালিত হয়। উচ্চশিক্ষায় দেশটির নাগরিক ও বিদেশি শিক্ষার্থীদের সুযোগ সুবিধা প্রায় সমান। এখানে শিক্ষাবর্ষ শুরু হয় সেপ্টেম্বর বা অক্টোবরে এবং শেষ হয় মে-জুনে।



এখানে তিন সেমিস্টারে কোর্স পড়ানো হয়। প্রথম সেমিস্টার সেপ্টেম্বর-অক্টোবর, দ্বিতীয় সেমিস্টার জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি এবং তৃতীয় সেমিস্টার মে-জুন মাসে। ফ্রান্সের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে সাধারণত ফ্রেঞ্চ ভাষায় পড়াশোনা করানো হয়। তবে কিছু বিশ^বিদ্যালয়ে ইংরেজিতে শিক্ষালাভের সুযোগ রয়েছে। এ ক্ষেত্রে আইইএলটিএস বা টোফেল করা থাকতে হবে।  আন্ডার গ্র্যাজুয়েটের জন্য ৫.০ থেকে ৫.৫ আইইএলটিএস এবং ৫৫০ টোফেল স্কোর এবং পোস্টগ্র্যাজুয়েটের জন্য সাধারণত ৬.০ আইইএলটিএস এবং ৬০০ টোফেল স্কোর থাকতে হবে। ফ্রান্সে উচ্চশিক্ষার জন্য যেসব কাগজপত্র লাগবে সেগুলো হলোÑ
১. শিক্ষার্থীর বৈধ পাসপোর্ট; ২. ফ্রান্সের কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তির প্রমাণপত্র; ৩. শিক্ষাকালীন সময়ে প্রয়োজনীয় খরচাপাতির সামর্থ্যরে প্রমাণপত্র (স্পন্সর) ও ৪. সার্টিফিকেট ও মার্কশিটের ফটোকপি এবং ভিসা আবেদনে অন্যান্য যে কাগজপত্র সবসময়ই প্রয়োজন হয়। ষ শিক্ষার আলো ডেস্ক









সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত


ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: কমলেশ রায়, নির্বাহী সম্পাদক : শাহনেওয়াজ দুলাল, আমিন মোহাম্মদ মিডিয়া কমিউনিকেশন লিমিটেড-এর পক্ষে
প্রকাশক গাজী আহমেদ উল্লাহ। নাসির ট্রেড সেন্টার, ৮৯, বীর উত্তম সি আর দত্ত সড়ক (সোনারগাঁও রোড), বাংলামোটর, ঢাকা।

ফোন : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৬৮-৭৪, ফ্যাক্স : +৮৮-০২-৯৬৩২৩৭৫। ই-মেইল : [email protected]